সিকিম গ্যাংটক লাচুং ইয়ামথাং ভ্যালী ছাঙ্গু লেক ভ্রমণে বৃত্ত!

সিকিম গ্যাংটক লাচুং ইয়ামথাং ভ্যালী ছাঙ্গু লেক ভ্রমণে বৃত্ত!
এটি Britto Travel & Tourism (বৃত্ত) এর একটি বৈদেশিক ইভেন্ট।

সিকিমের সৌন্দর্য্য নিয়ে বেশি কিছু বলার দরকার নেই। পাহাড়ি রুপ-মাধুর্য্যে মন হারিয়ে যাবার মতো সৌন্দর্য্যে ভরপুর এই সিকিম।

সিকিম ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের একটি রাজ্য এবং উল্লেখযোগ্য পর্যটন কেন্দ্র। এর উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে চীনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল তিব্বত, পূর্বে ভুটান, পশ্চিমে নেপাল এবং দক্ষিণে ভারতের অপর একটি রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ। সিকিমে অবস্থিত কাঞ্চনজঙ্ঘা ভারতের সর্বোচ্চ এবং পৃথিবীতে তৃতীয় সর্বোচ্চ পর্বত শিখর। সিকিমের রাজধানী ও বৃহত্তম শহর গ্যাংটক। বাংলাদেশীদের জন্য নভেম্বর ২০১৮ তে খুলে দেওয়া হয়েছে সিকিম।

✔ চলুন সিকিম নিয়ে আমাদের প্লানটি শেয়ার করে ফেলি
যাত্রার তারিখঃ ২৫ই মার্চ রাত ৭টা,
ফেরার তারিখঃ ১ই এপ্রিল সকাল ৭টা,
খরচঃ ২২৫০০/- টাকা।

নোটঃ সিকিমে প্রতিটি ক্ষেত্রেই লাক্সারিয়াস ব্যবস্থা করা হয়েছে। ৩ তারকা মানের হোটেল, বাফেট খাবার, লাক্সারী ইনোভা গাড়িতে করে সকল সাইট সিয়িং, এসি বাস সার্ভিস সহ সকল ধরনের লাক্সারী আয়োজন।

সিকিম এর জন্য পারমিশন আমরাই ব্যবস্থা করে দিবো।

সিকিমে আমরা যা যা ঘুরবোঃ
১। ছাঙ্গু লেক,
২। গ্যাংটক এর বিখ্যাত শপিং মল M.G Marg,
৩। লাচুং সিটি,
৪। ইয়ামথাং ভ্যালী,
৫। Tashi View Point,
৬। Namgyal Institute of Tibetology,
৭। Hanuman Tok,
৮। Do-drul Chorten,
৯। Ganesh Tok,
১০। Banjhakri Water Falls & Energy Park,
১১। Flower Exhibition Centre-Ridge Park,
১২। Gangtok Ropeway etc.

✔ কনফার্ম করবেন যেভাবেঃ

ট্যুর কনফার্মেশন করার জন্য আপনাকে ১০০০০ টাকা জমা দিয়ে ট্যুর কনফার্ম করতে হবে (অফেরতযোগ্য), এক্ষেত্রে বিকাশ/ব্যাংক/ অফিসে এসে সরাসরি জমা দিতে পারবেন। বিকাশ 01911-254397 পার্সোনাল। অথবা আমাদের অফিসে এসেও টাকা জমা দিতে পারেন। অথবা ব্যাংকেও পাঠাতে পারেন।

✔ কনফার্ম করার ডেডলাইনঃ কনফার্ম করার শেষ তারিখ ৫মার্চ, তবে যতদ্রুত কনফার্ম করা যাবে ততই ভালো।

✔ ভিসাঃ ভিসা করতে আমরা হেল্প করবো।

ট্যুর প্ল্যানঃ

০০ দিন (২৫ই মার্চ)
রাত ৭টার এসি বাসে বুড়িমাড়ির উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। শেরপুর ফুড ভিলেজ এ যাত্রাবিরতি। সকাল ৭টার মধ্যে বুড়িমারী পৌছানো।

১ম দিন (২৬ই মার্চ)
সকালে বুড়ির হোটেলে নাস্তা করবো। বুড়িমারী ও চ্যাংড়াবান্ধা ইমিগ্রেশান ও কাষ্টমস এর সকল ফর্মালিটিজ শেষ করে ১২টার মধ্যে শিলিগুড়ির উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। দুপুরে শিলিগুড়ি পৌছেই রেস্টুরেন্ট এ ফ্রেশ হয়ে লাঞ্চ। লাঞ্চ করে ইনোভা লাক্সারী গাড়ি করে আমাদের বহুল প্রত্যাশিত গ্যাংটকের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। পাহাড়ি আকাবাকা রাস্তার দু’পাশের নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখতে দেখতে প্রায় ৫-ঘন্টা জার্নি শেষে আমরা পৌছাবো গ্যাংটক। হোটেলে চেকইন করে কিছুটা রেস্ট নিবো। এরপর নিজেদের মত ঘুরাঘুরি করবো। কেউ চাইলে গ্যাংটক এর বিখ্যাত শপিং মল M.G Marg এ ঘুরে আসতে পারবেন। নাইট স্টে গ্যাংটক।

২য় দিন (২৭ই মার্চ)
সকালের বাফেট নাস্তা শেষে বেরিয়ে পড়বো লোকাল সাইটসিয়িং এ। এই দিনে আমরা যা যা দেখবোঃ Tashi View Point, Namgyal Institute of Tibetology, Hanuman Tok, Do-drul Chorten, Ganesh Tok,Banjhakri Water Falls & Energy Park, Flower Exhibition Centre-Ridge Park, Gangtok Ropeway etc। বিকেল সময় ফ্রি টাইম। চাইলে আপনারা M.G Marg মলের আশেপাশে ঘুরে দেখতে পারেন কিংবা শপিং করেও সময় কাটাতে পারেন।

৩য় দিন (২৮ই মার্চ)
সকাল সাড়ে ৮টার মধ্যে নাস্তা সেরে বেরিয়ে পরবো ছাঙ্গু লেক এর উদ্দেশ্যে। ছাঙ্গু লেকে নিজ খরচে রোপওয়ে ও ইয়াক রাইড করতে পারবেন। ছাঙ্গু লেক থেকে বিকেলের মধ্যে গ্যাংটক ফিরবো। পুরো বিকেল ফ্রি টাইম। চাইলে নিজেদের মত আশেপাশের শপিং মল ঘুরে দেখতে পারবেন।

৪র্থ দিন (২৯ই মার্চ)
সকাল ৯টার মধ্যে আমরা লাচুং এর উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবো। যাত্রাপথে আমরা যা যা দেখবোঃ Butterfly Waterfall or Seven Sisters Waterfalls (Any of them depends as per route open), Naga Waterfalls, Bhim Nala Waterfalls। বিকেলের মধ্যে লাচুং পৌছে যাবো। লাচুং হোটেল এ চেকইন হয়ে ফ্রেশ হয়ে নিবো। বিকেল/সন্ধা ফ্রি টাইম। নিজেদের মত আশেপাশে ঘুরে দেখবো।

৫ম দিন (৩০ই মার্চ)
প্রায় ১৪০০০ ফিট উচ্চতার অপূর্ব সৌন্দর্য ইয়ামথাং ভ্যালীর উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবো। কথা দিচ্ছি ইয়ামথাং ভ্যালী আপনার জন্য এক অন্যরকম অনুভূতি দিবে। ইয়ামথাং ভ্যালী পর্যন্ত আমাদের পারমিশন। ইয়াম্থাং ভ্যালী থেকে জিরো পয়েন্ট যাওয়া সম্পুর্ন নির্ভর করবে পারমিশনের উপর। ইনস্ট্যান্ট পারমিশন হলে এক্সট্রা পেমেন্ট ড্রাইভারকে দিতে হবে যা প্যাকেজে অন্তর্ভুক্ত নয় (আনুমানিক ৫০০/৬০০ রুপী এক্সট্রা লাগতে পারে)। দুপুরের মধ্যে লাচুং হোটেলে ব্যাক করে ফ্রেশ হয়ে লাঞ্চ করা হবে। ২টার মধ্যে গ্যাংটকের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। রাতের মধ্যে গ্যাংটক পৌছানো। নাইট স্টে গ্যাংটক।

৬ষ্ট দিন (৩১ই মার্চ)
সকালে ফ্রেশ হয়ে নাস্তা করে শিলিগুড়ির উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। দুপুরের মধ্যে শিলিগুড়ি পৌছে লাঞ্চ করে চ্যাংড়াবান্ধা হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু।

শেষ দিন (১ এপ্রিল)
সকাল ৬/৭টার মধ্যে ঢাকায় ফেরত।

প্যাকেজে যা যা অন্তর্ভুক্তঃ
১। ঢাকা-বুড়িমারী-ঢাকা এসি বাস,
২। চ্যাংড়াবান্ধা-শিলিগুড়ি-চ্যাংড়াবান্ধা টাটা জীপ গাড়ি,
৩। শিলিগুড়ি-গ্যাংটক-শিলিগুড়ি ইনোভা লাক্সারী গাড়ি,
৪। ৪-রাত থ্রি-স্টার হোটেলে গ্যাংটক, ১রাত লাচুং ট্যুরিস্ট স্ট্যান্ডার্ড হোটেলে টুইন শেয়ার বেসিস থাকা।
৫। সকল লোকাল ট্রান্সপোর্ট খরচ,
৬। প্রতিদিন ৩বেলা মূল খাবার (ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ, ডিনার)
৭। সকল ধরনের ট্যাক্সেস,
৮। সকল পারমিশন খরচ,
৯। সকল ধরনের এন্ট্রি ফি,
১০। গাইড ফি।

প্যাকেজ এ যা যা অন্তর্ভুক্ত নয়ঃ
১। বাসের মধ্যবিরতিতে খাবার খরচ,
২। যেকোন ব্যক্তিগত খরচ,
৩। ট্যুর প্ল্যানের বাহিরে এক্সট্রা সাইটসিয়িং, এক্সট্রা জীপ ভাড়া,
৪। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে যদি কোন খরচ বেড়ে যায়,
৫। ট্রাভেল ট্যাক্স,
৬। কোন ধরনের পোর্ট এড এর খরচ,
৭। বর্ডার স্পীড মানি,
৮। ট্যুরে অন্তর্ভুক্ত নয় এমন কোন খরচ।

স্পেশাল নোটঃ
১। গ্যাংটক/সিকিম ট্যুরের জন্য অবশ্যই চ্যাংড়াবান্ধা/বাংলাবান্ধা বর্ডার দিয়ে ভিসা করা থাকতে হবে। কারো অন্য পোর্ট দিয়ে ভিসা করা থাকলেও আমরা চ্যাংড়াবান্ধা পোর্ট এড করে দিবো। ( পোর্ট এড করতে ফি লাগবে)।

ভারতীয় ভিসা করার জন্য যেসকল কাগজপত্র লাগবেঃ
১। মিনিমাম ৬ মাস মেয়াদি পাসপোর্ট,
২। বর্তমান বাসার বিদ্যুৎ/গ্যাস/পানি/টেলিফোন বিলের কপি,
৩। ব্যাংক স্টেটমেন্ট (মিনিমাম ২০০০০ টাকা থাকতে হবে)। ব্যাংক একাউন্ট না থাকলে ডলার এন্ড্রোসমেন্ট (১৫০ ডলার),
৪। চাকুরীজিবীদের খেত্রে NOC, ব্যাবসায়ীদের খেত্রে ট্রেড লাইসেন্স, স্টুডেন্টদের খেত্রে স্টুডেন্ট আইডি কার্ড, সরকারি কর্মকর্তার খেতে GO,
৫। জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা জন্মনিবন্ধনের কপি,
৬। দুই কপি ২/২ সাইজ রঙ্গিন ছবি,
৭। পুরাতন পাসপোর্ট থাকলে সেটাও সাথে জমা দিতে হবে,
৮। ভিসার আবেদন ফর্ম।

যাওয়ার পূর্বে যেগুলো অবশ্যই নিতে হবেঃ

১। সকল ডকুমেন্টস এর ১০ কপি,
২। ১০ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি,
৩। এন ও সি এর কপি/ট্রেড লাইসেন্স এর কপি/ স্টুডেন্ট আইডি কার্ড এর কপি,
৪। সিকিম পারমিশন লেটারের কয়েক কপি।

বিশেষ নির্দেশনা:
বৈরী আবহাওয়া কিংবা যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে ছাংগু লেক কিংবা নর্থ সিকিম পারমিশন না পাওয়া গেলে Alternative Sightseeing এর ব্যাবস্থা থাকবে। সেক্ষেত্রে কোন ধরনের উজর আপত্তি চলবেনা।

ভ্রমণ নির্দেশিকাঃ
১। স্থানীয়দের সাথে কোনভাবেই তর্কে যাওয়া যাবে না।
২। ভ্রমনের সময় কোন ধরনের মাদকদ্রব্য বহন করা যাবে না।
৩। মজা আমরা অবশ্যই করব তবে সেটা যেন সীমা অতিক্রম না করে। কোন ধরনের অশ্লীলতা বরদাস্ত করা হবে না।
৪। দলগত ভাবে ঘুরে বেড়াবো।
৫। হোটেলে শেয়ার বেসিস সবাইকে মিলেমিশে থাকতে হবে। মেয়েদের জন্য আলাদা রুমের ব্যাবস্থা থাকবে। (প্রতিরুমে ২জন)
৬। খাবারের মান যতটা ভাল করা যায় চেষ্টা করা হবে।
৭। পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে যেকোন সিদ্ধান্ত সবার সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নেওয়া হবে এবং সেক্ষেত্রে এডমিনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হিসেবে গন্য হবে।
৮। যত্রতত্র ময়লা না ফেলে একটা নির্দিস্ট স্থানে ফেলব।
৯। সর্বোপরি সবার সহযোগিতা ও আন্তরিকতায় একটি ট্যুর সুন্দর ও সাফল্যমন্ডিত করা সম্ভব। আশা করি সবাই সহযোগিতা করবেন।
১০। যেহেতু গ্রুপ ট্যুর সেক্ষেত্রে সকলকে মানিয়ে চলার মন-মানসিকতা থাকতে হবে। নাক-সিটকানো স্বভাবের লোক এই ট্যুর থেকে দূরে থাকুন। আমরা চাই সবার সহযোগীতায় সুন্দর একটি ট্যুর করতে।

বৃত্ত-Britto Travel & Tourism
Corporate Office : Concord Tower (2nd Floor, Suite-202), 113 Kazi Nazrul Islam Avenue Banglamotor, Dhaka-1000.
Mobile: +880 1911 722 007, +880 1911 254397.
Email : brittotourism@gmail.com
Website : www.brittotourism.com

Cafe Britto - ক্যাফে বৃত্ত
Office - 2 : House-836, Road-2, (1st floor),
Baitul Aman Housing Society, Adabar Dhaka-1207.

Facebook Page :https://www.facebook.com/pg/BrittoTourism
Facebook Group : https://www.facebook.com/groups/BrittoTourism/

প্রয়োজনে যোগাযোগঃ
1. Tawhidul Islam Shawon – 01911 254397,
2. Masud Rana Moshiur - 01673 892038,
3. Dr. Mazharul Xion - 01911 722007. 




পরবর্তী ট্যুরসমূহ